সংবাদ শিরোনাম
DSE

সরকারের দুই মেয়াদে ৪ হাজার ৪৯০ কেজি স্বর্ণ আটক

gold

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, বর্তমান সরকারের দুই মেয়াদে (২০০৯ সাল থেকে এ পর্যন্ত) অবৈধভাবে আসা সর্বমোট ৪ হাজার ৪৯০ কেজি ৪৯৩ গ্রাম স্বর্ণ আটক করা হয়েছে। অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগের আওতাধীন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের অধীনস্থ দফতরসমূহের বিভিন্ন দফতর এসব স্বর্ণ আটক করে।

সোমবার জাতীয় সংসদে তানভীর ইমামের (সিরাজগঞ্জ-৪) তারকা চিহ্নিত প্রশ্নের জবাবে এ তথ্য জানান তিনি। এর আগে বিকেলে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদের বৈঠক শুরু হয়।

গোলাম দস্তগীর গাজীর (নারায়ণগঞ্জ-১) প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী জানান, বর্তমানে দেশে করদাতার সংখ্যা ২৯ লাখ ২৮ হাজার ৯৩।

তিনি বলেন, আয়কর হলো সর্বোত্তম কর ব্যবস্থা। এতে আয়ের অনুপাতে করহার বৃদ্ধি পায়, যা সম্পদের সুষম বণ্টনে মূল্যবান অবদান রাখে। সবচেয়ে লক্ষণীয় বিষয় হলো- বর্তমান সরকারের আমলে বিগত ৮ বছরে করদাতাদের মধ্যে করনেটে আবদ্ধ হওয়াকে যে হয়রানি মনে করা হতো সেই পরিস্থিতি এখন পরিবর্তিত বলে প্রতিফলিত হয়েছে। দেশের উন্নয়নের জন্য কর প্রদান তরুণ প্রজন্মের কাছে আর ভয়ভীতি বা হয়রানি বলে মনে হয় না।

এ সময় করদাতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে করদাতা শনাক্ত ও কর আদায়ের বিভিন্ন পদক্ষেপ তুলে ধরেন তিনি।

মো. আবদুল মতিনের (মৌলভীবাজার-২) তারকা চিহ্নিত প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, স্বাধীনতার পর থেকে বাংলাদেশে বৈদেশিক সাহায্য গ্রহণ করে আসছে। তবে বৈদেশিক সাহায্যের ওপর নির্ভরশীলতা ক্রমান্বয়ে কমছে। ১৯৮০ থেকে ১৯৯০ সাল পর্যন্ত বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির প্রায় ৫১ শতাংশ বৈদেশিক সাহায্য থেকে অর্থায়ন করা হতো, যা ১৯৯১-২০০০ সালে ৪৪ শতাংশ এবং ২০০১-২০১০ সালে ৩৭ শতাংশ কমেছে। ২০১১-২০১৬ সময়ে বছরে এডিপির গড়ে প্রায় ৩৪ শতাংশ বৈদেশিক সহায়তা হতে অর্থায়ন করা হয়েছে।