সংবাদ শিরোনাম
DSE

বিদেশিদের নজর পর্যটন ও ভ্রমণ খাতের শেয়ারে

dse-sp-bg20171112090720

বিদেশি বিনিয়োগকারীদের নজর এখন পর্যটন ও ভ্রমণ খাতের শেয়ারের দিকে। শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) অনুসারে শেয়ারের দাম কম থাকার পাশাপাশি কোম্পানিগুলোর ভবিষ্যৎ আরো ভালো হবে- এমন প্রত্যাশায় কোম্পানিগুলোর শেয়ার কিনছেন বিদেশিরা।

ফলে সর্বশেষ চারমাসে এ খাতে তালিকাভুক্ত চারটি কোম্পানির মধ্যে তিনটিতেই বিদেশিদের বিনিয়োগ বেড়েছে। কোম্পানিগুলো হচ্ছে- দ্য পেনিনসুলা চিটাগং লিমিটেড, ইউনিক হোটেল অ্যান্ড রিসোর্ট লিমিটেড এবং ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ লিমিটেড।

দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) তথ্যমতে, গত জুলাই-অক্টোবর সময়ে বিদেশিরা সবচেয়ে বিনিয়োগ করেছেন ইউনাইটেড এয়ারে। ওই চারমাসে প্রতিষ্ঠানটির ১২ দশমিক ১৮ শতাংশ শেয়ার কিনেছেন তারা। এছাড়াও হোটেল পেনিনসুলার ৪ শতাংশ ও ইউনিক হোটেলের দশমিক ৩৩ শতাংশ শেয়ার কিনেছেন বিদেশিরা।

ডিএসই’র তথ্যমতে, ১৯৮৪ সালে বাজারে তালিকাভুক্ত হয় এ খাতের অন্য  কোম্পানি বাংলাদেশ সার্ভিসেস লিমিটেড। সর্বশেষ বৃহস্পতিবার (০৯ নভেম্বর) সরকারি কোম্পানিটির শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৫ দশমিক ৫০ টাকায়। সর্বশেষ ২০১৪ সালে ১৫ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দেওয়ার পর শেয়ার হোল্ডারদের আর কোনো লভ্যাংশ দিতে না পারায় এখন ‘জেড’ ক্যাটাগরিতে অবস্থান করছে।

এ কোম্পানিতে সরকারের মালিকানা রয়েছে ৯৯ দশমিক ৬৮ শতাংশ। আর বিদেশিদের হাতে দশমিক ১৯ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের হাতে রয়েছে দশমিক ১৩ শতাংশ শেয়ার।

২০১৪ সালে একই খাতে তালিকাভুক্ত হয় দ্য পেনিনসুলা। কোম্পানিটি বর্তমানে ‘এ’ ক্যাটাগরিতে রয়েছে। সর্বশেষ গত বছর নগদ ১০ শতাংশ ও ২০১৫ সালে নগদ ১০ শতাংশ ও ৫ শতাংশ বোনাস শেয়ার লভ্যাংশ দিয়েছে শেয়ার হোল্ডারদের। কোম্পানিটির শেয়ার সর্বশেষ লেনদেন হয়েছে ২২ দশমিক ৩০ পয়সায়।

বর্তমানে উদ্যোক্তা-পরিচালকদের হাতে ৩৮ দশমিক ৪৯ শতাংশ শেয়ার, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের হাতে ১৫ দশমিক ১৪ শতাংশ এবং বিদেশিদের হাতে রয়েছে দশমিক ৩৫ শতাংশ শেয়ার। এর আগের মাস জুন পর্যন্ত বিদেশিদের হাতে শেয়ার ছিলো দশমিক ৩৩ শতাংশ শেয়ার।
২০১২ সালে তালিকাভুক্ত ইউনিক হোটেলের উদ্যোক্তা-পরিচালকদের হাতে ৫২ দশমিক ১৪ শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের হাতে ২৯ দশমিক ৪৭ শতাংশ শেয়ার ও বিদেশিদের হাতে রয়েছে ১ দশমিক ৭৩ শতাংশ শেয়ার।

এর আগের মাস জুন পর্যন্ত বিদেশি বিনিয়োগকারীদের হাতে কোম্পানির মোট ১ দশমিক ৪০ শতাংশ শেয়ার ছিলো।

কোম্পানিটি গত বছর ২২ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দেওয়ায় ‘এ’ ক্যাটাগরিত অবস্থান করছে। সর্বশেষ কার্যদিবসে শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৫৪ দশমিক ৭০ পয়সায়।

অন্যদিকে উৎপাদনহীন বন্ধ থাকা ইউনাইটেড এয়ারের সর্বশেষ চারমাসে বিনিয়োগকারীরা ১২ দশমিক ১৮ শতাংশ শেয়ার কিনেছেন। এর আগে গত জুন মাসে বিদেশিদের হাতে কোনো শেয়ার ছিলো না। কোম্পানিটির শেয়ার সর্বশেষ লেনদেন হয়েছে ৫ টাকা ৯০ টাকায়।