সংবাদ শিরোনাম
DSE

‘মীনা মিডিয়া অ্যাওয়ার্ড’ পেলেন পলাশ মাহবুব

palash

কথাসাহিত্যিক ও নাট্যকার পলাশ মাহবুব মীনা মিডিয়া অ্যাওয়ার্ড‌‌ পেলেন। গত বইমেলায় পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স থেকে প্রকাশিত ‘তালা’ গ্রন্থের জন্য তিনি প্রথম পুরস্কার লাভ করেন।
পুরস্কৃত হওয়ার অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে পলাশ মাহবুব বলেন, পুরস্কার পাওয়ার অনুভূতি সবসময়ই অসাধারণ। আর পুরস্কার যদি হয় শিশু-কিশোরদের নিয়ে কাজ করার প্রাপ্তি তাহলে তো কথাই নেই। আমি বেশ কিছু পুরস্কার ইতিমধ্যে পেয়েছি তবে এই পুরস্কার সবার মধ্যে ব্যতিক্রম একটি। ইউনিসেফকে ধন্যবাদ।

সাংবাদিকতা পেশার সঙ্গে ওতোপ্রতো ভাবে জড়িত থাকলেও পলাশ মাহবুব লিখছেন নিয়মিত। শিশুদের ভালবাসেন তাই তার লেখালেখির একটি বড় অংশ শিশুদের জন্য। এর বাইরে গল্প, উপন্যাস, টেলিভিশন নাটক, রম্য রচনা, ছড়াসহ অনুভূতির অন্যান্য ভাষান্তরও করেন তিনি। জনপ্রিয় এই লেখকের ‘টো টো কোম্পানি সিরিজ’, ‘লজিক লাবু সিরিজ’, ‘আবু ওসমানের নিজস্ব ভুল’, বলতে এলাম ভালোবাসি, পিটি রতন সিটি খোকন, ‘আবু ইদরিস যখন লেখক হতে চেয়েছিলেন’, ‘হঠাৎ খলিল, বলতে এলাম ভালোবাসি, টুলু ব্রাদার্স, ‘সূর্যমুখিরা দুইবোন’, ‘থোকায় থোকায় জোনাক জ্বলে’, ‘বই খুললেই ভূত’, ‘মা করেছে বারণ’, ‘প্রেমাণুকাব্য’ বইগুলো উল্লেখযোগ্য।
পলাশ মাহবুব বর্তমানে সারাবাংলা ডটনেট এবং দৈনিক সারাবাংলা’য় উপ-সম্পাদক হিসেবে কর্মরত।
প্রসঙ্গত, শিশুদের অধিকার সমুন্নত রাখার ক্ষেত্রে অসামান্য অবদানের জন্য ৪৯ জন গণমাধ্যমকর্মীকে সম্মানীত করেছে ইউনিসেফ। রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক কেন্দ্রে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু এমপি এবং ইউনিসেফ বাংলাদেশের পক্ষে এডুয়ারর্ড বেগবেদার বিজয়ীদের হাতে ক্রেস্ট, পুরস্কারের অর্থ ও সনদ তুলে দেন। ইউনিসেফ বাংলাদেশের শুভেচ্ছাদূত অভিনেত্রী আরিফা জাহান মৌসুমী ও জাদুকর জুয়েল আইচও এ সময় উপস্থিত ছিলেন।