সংবাদ শিরোনাম
DSE

আগামী বছর থেকে ঢাকায় আন্তর্জাতিক পর্যটন মেলা

berai

বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন এমপি বলেছেন, বাংলাদেশের অগ্রগতি ও সৌন্দর্য তুলে ধরে একে একটি আকর্ষনীয় পর্যটন গন্তব্য হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয় আগামী বছর থেকে ঢাকায় আন্তর্জাতিক পর্যটন মেলা আয়োজন করা হবে।

গতকাল রোববার রাজধানীর একটি হোটেলে বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশনের (বিপিসি) নিউজ লেটার ‘দ্যা ট্রাভেললগ’এর আত্মপ্রকাশ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

মেনন বলেন, পর্যটন এখন আর কেবল দেশ দেখার মাঝে সীমাবদ্ধ নেই। রিলিজিয়াস ট্যুরিজম, হালাল ট্যুরিজম, কালচারাল ট্যুরিজম, হেলথ ট্যুরিজম পর্যটনকে সবচেয়ে বর্ধিষ্ণু শিল্পে পরিণত করেছে। গত বছর ১.২ বিলিয়ন পর্যটন পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ ভ্রমণ করেছে। এ সব পর্যটকদের বাংলাদেশ মুখি করতে আন্তর্জতিক পর্যটন মেলা ভূমিকা রাখবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

বাংলাদেশ পৃথিবীর অন্যতম নিরাপদ দেশ হওয়া এ দেশে ভ্রমণের ক্ষেত্রে কতিপয় দেশের ট্রাভেল এলার্ট জারিতে হতাশা প্রকাশ করে মন্ত্রী বলেন, এ ধরণের পদক্ষেপ সিকাগো সনদের পরপন্থী। ট্রাভেল এডভাইজারি হতে হয় সুষ্পষ্ট ও নির্দিষ্ট সময়ের জন্য। তিনি এ ধরণের ট্রাভেল এডভাইজারি প্রত্যাহার করতে সংশ্লিষ্ট দেশসমূহের প্রতি আহ্বান জানান।

বিপিসি চেয়ারম্যান আখতারুজজামান খান কবীরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্যে দেন, হিলের এডি কে এম আবদুস সালাম, বিপিসির পরিচালক শহীদুল ইসলাম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. রাশীদুল হাসান, মনিটরের সম্পাদক কাজী ওয়াহিদুল আলম, ট্রাভেল ওয়ার্ল্ডের সম্পাদক সাহাবুদ্দিন ও পাটা বাংলাদেশ চ্যাপ্টারের সভাপতি শহীদ হামিদ প্রমুখ।