সংবাদ শিরোনাম
DSE

এমডিরাও হঠাৎ ব্যাংকের মালিকানা পরিবর্তনে উদ্বিগ্ন

bank

সম্প্রতি দেশের কয়েকটি বেসরকারি ব্যাংকে হঠাৎ করে মালিকানা ও ব্যবস্থাপনা পরিবর্তনের যে ঘটনা ঘটেছে, তা নিয়ে উদ্বিগ্ন বেশিরভাগ ব্যাংকের প্রধান নির্বাহী।
বুধবার বাংলাদেশ ব্যাংকে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে তারা এই উদ্বেগের বিষয়টি তুলে ধরেন। একইসঙ্গে তারা এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের সহায়তা কামনা করেছেন।
বৈঠকে বিভিন্ন ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালকরা বলেছেন, ব্যাংকগুলোতে যেভাবে হঠাৎ পরিবর্তন ঘটছে, তাতে আমানতকারীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ছে। এমন ঘটনায় তারাও (এমডিরা) ভয়ের মধ্যে রয়েছেন।
বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবিরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সভায় বিভিন্ন ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালকরা উপস্থিত ছিলেন।
সদ্য বিদায়ী বছর তথা ২০১৭ সালে বেসরকারি খাতের ইসলামী ব্যাংক ও সোস্যাল ইসলামী ব্যাংকের মালিকানা ও ব্যবস্থাপনায় হঠাৎ পরিবর্তন হয়। এ সময় দুই ব্যাংকের এমডিও পদত্যাগ করেন। আর এসব পরিবর্তনে বাংলাদেশ ব্যাংক নিরব দর্শকের ভূমিকা পালন করে।
শুধু তাই নয়, তারা পরোক্ষভাবে এসব পরিবর্তনে সম্মতিও দেয়।
বৈঠক শেষে ব্যাংক এমডিদের সংগঠন অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশের (এবিবি) চেয়ারম্যান সৈয়দ মাহবুবুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, গেলো বছর ব্যাংকগুলোতে পরিবর্তন দেখেছি। আমরা কেন্দ্রীয় ব্যাংককে জানিয়েছি। এসব পরিবর্তন হতেই পারে, তবে হঠাৎ করে যেন না হয়। পরিবর্তন আকস্মিকভাবে হলে নানা ধরনের সমস্যা হতে পারে। ব্যবস্থাপনায় থেকে আমাদের ভয় হয়।
সভা শেষে বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এস কে সুর চৌধুরী সাংবাদিকদের বলেন, শেয়ারহোল্ডাররা শেয়ার কেনাবেচা করেন। এতে কেউ বেশি শেয়ার কিনে বার্ষিক সাধারণ সভা বা পরিচালনা পর্ষদের সভার মাধ্যমে পরিচালক হতেই পারেন। এক্ষেত্রে কোনো অনিয়ম হলে বা সুশাসনের অভাব থাকলে বাংলাদেশ ব্যাংক বিষয়টি দেখে এবং দেখছে।