সংবাদ শিরোনাম
DSE

কারখানার পরিবেশ নিশ্চিত করে ভালো ওষুধের মান

medicine

ওষুধ প্রস্তুত করার ক্ষেত্রে ফার্মাসিউটিক্যালস কারখানার ভেতরের পরিবেশ নিশ্চিত করাটা সর্বপ্রথম ও জরুরি কাজ। কেননা ভালো ও উন্নতমানের কাঁচামাল থাকা সত্ত্বেও বাহ্যিক বা বাতাসের দূষিত পদার্থের (মাইক্রোঅর্গানিজম) কারণে নষ্ট হয়ে যেতে পারে ওষুধের গুণগত মান। অনেক সময় পরিবর্তীত হয়ে যেতে পারে বা নষ্ট হতে পারে ওষুধের কার্যক্ষমতা।

তাই ওষুধ প্রস্তুতকারকদের জন্য কারখানার পরিবেশ, কাঁচামাল ও যন্ত্রপাতিসহ যাবতীয় বিষয়ের অত্যাধুনিক রূপ প্রদর্শনের মেলা চলছে ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় (আইসিসিবি)। বৃহস্পতিবার (০৮ ফেব্রুয়ারি) থেকে শুরু হওয়া তিন দিনব্যাপী দশম এশিয়া ফার্মা এক্সপো-২০১৮ চলবে শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) পর্যন্ত। প্রদর্শনীটি প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত খোলা থাকছে।

শুক্রবার (০৯ ফেব্রুয়ারি) আইসিসিবিতে ঘুরে দেখা যায়, উৎসুক ফার্মাসিউটিক্যালস কোম্পানিতে কর্মরত ও ব্যবসায়ীদের ভিড়। তার প্রধান কারণ আধুনিক যন্ত্রপাতি ও পদ্ধতি সম্বলিত এ প্রদর্শনী।

আইসিসিবির ৩ নম্বর হলে ‘নিও অ্যাসোসিয়েটস লিমিটেডে’র প্যাভিলিয়নে প্রদর্শিত হচ্ছে উন্নতমানের ও তুলনামূলক স্বল্প খরচে পুরো ফার্মাসিউটিক্যালস কোম্পানির ডিজাইন ও ব্যবস্থাপনা। যেখানে নিশ্চিত করা হয়েছে বাইরের পরিবেশের সঙ্গে সম্পর্কহীন একটি কারখানার। চীনের টফলোন কোম্পানির তৈরি প্রযুক্তিতে এ রকম কারখানা এরইমধ্যে ব্যবহৃত হচ্ছে দেশের সব নামিদামি ফার্মাসিউটিক্যালস কোম্পানিতে।

টফলোনের সেলস ম্যানেজার জনি ঝউ জানান, সব ধরনের ওষুধ তৈরির প্রক্রিয়ার শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত সব প্রযুক্তিই আমাদের আছে। আর আমরা সবচেয়ে বেশি জোর দিয়েছি রুম এনভায়রনমেন্টের দিকে। এ ক্লাস, বি ক্লাস ও সি ক্লাস রুম এনভায়রনমেন্ট হিটিং ভেনটিলেশন অ্যান্ড এয়ার কন্ডিশনিং (এইচভ্যাক)-এর মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণ করা হয়। আর আমাদের এইচভ্যাক সিস্টেম অনেক বেশি ভালো ও তূলনামূলকভাবে খরচ কম।

তিনি আরও জানান, ওষুধ তৈরির কাঁচামাল অর্থাৎ অ্যাক্টিভ ফার্মাসিউটিক্যালস ইনগ্রেডিয়েন্ট (এপিআই) প্রস্তুতকরণের জন্য বিশেষ প্ল্যান্টও রয়েছে আমাদের। এখানেও রুম এনভায়রনমেন্ট অত্যন্ত জরুরি। আর বাংলাদেশের মার্কেট ভালো।