আগামী সংসদ নির্বাচন ইভিএমে : সালমান এফ রহমান

বিডিএফএন টোয়েন্টিফোর.কম

আগামী সংসদ নির্বাচন ইভিএমে হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগবিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান।

তিনি বলেছেন, স্থানীয় নির্বাচন ও সিটি করপোরেশন নির্বাচন ইভিএম পদ্ধতিতে হয়েছে। অত্যন্ত সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে সম্পন্ন হয়েছে। ফলে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন ইভিএম পদ্ধতিতে করা হবে।

সোমবার (২৫ জুলাই) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আয়োজিত এক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) সেমিনারটির আয়োজন করে। সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন বিএসইসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম।

প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান বলেন, দেশে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা রয়েছে। দেশের নিরাপত্তার পরিবেশও সুন্দর। কোথাও অগ্নিসংযোগ কিংবা জঙ্গি হামলা নেই।

‘জাতীয় ব্র্যান্ডিং : বিশ্বব্যাপী নতুন প্রতিভা এবং বিনিয়োগের আকর্ষণ’ শীর্ষক সেমিনারে তিনি বলেন, কিছুদিন আগেও বাংলাদেশে অর্থনীতির স্থিতিশীল ছিল। গ্রোথ ভালো হচ্ছিল। এ কারণে বিশ্বব্যাপী করোনার পরও আমাদের অর্থনীতি স্থিতিশীল ছিল। আমরা করোনাকে ওভারকাম করে অর্থনীতি এগিয়ে নিয়েছি। এ কারণে করোনা অর্থনীতির তালিকায় বাংলাদেশ পঞ্চম ছিল।

কিন্তু এখন মুদ্রাস্ফীতি বেড়েছে ও কিছুদিন ধরে ডলার অস্থিতিশীল রয়েছে উল্লেখ্য করে তিনি বলেন, এখন ডলারের বাজার স্থিতিশীল রাখাই চ্যালেঞ্জ। তবে অর্থনীতির এই অবস্থা খুব বেশিদিন থাকবে না। ২০২৩ সালের প্রথম দিকে স্থিতিশীল হয়ে আসবে। দেশে স্বাভাবিক পরিস্থিতি বিরাজ করবে।

সালমান এফ রহমান বলেন, ইন্দোনেশিয়ায় পামওয়েলের দাম কমে আসছে। বছরের শেষ নাগাদ কমে আসবে জ্বালানি তেলের দামও। একইসঙ্গে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দামও হ্রাস পাবে।

সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ব্লুমবার্গের আঞ্চলিক কৌশলের প্রধান মি. অ্যান্ড্রু বগস। বিশেষ অতিথি ছিলেন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মাসুদ বিন মোমেন। এর আগে পলিসি এক্সচেঞ্জের চেয়ারম্যান মাশরুর রিয়াজ সঞ্চালনায় প্যানেল আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়।

সভাপতির বক্তব্যে অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম বলেন, আগামীতে এসডিজি গোল পূরণের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ বিনিয়োগ ঘাটতি। বিনিয়োগ ঘাটতি পূরণ করতে আমাদের বিদেশি বন্ধুদের সহায়তা প্রয়োজন।

তিনি বলেন, আমাদের খারাপ সময় কেটে গেছে। আমরা এখন অনেক এগিয়ে। দুই বছর আগে ব্র্যান্ডিং বাংলাদেশ শুরু করেছিলাম তা এখন একটা ট্রেন্ডিংয়ে পরিণত হয়েছে। এজন্যই ব্লুমবার্গ আমাদের সঙ্গে কাজ করতে এসেছে। এজন্যই পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বিএসইসির সঙ্গে কাজ করছে।

তিনি আরও বলেন, রোড শোগুলো থেকেও অনেক ফিডব্যাক এসেছে।