প্রথমবারের মতো সূর্যকে ছুঁয়ে নাসার ইতিহাস

বিডিএফএন টোয়েন্টিফোর.কম

সভ্যতার ইতিহাসে প্রথমবারের মতো সূর্যের বলয়ে পৌঁছে গেছে মানুষের তৈরি মহাকাশ যান পার্কার সোলার প্রোব। আমেরিকার মহাকাশ সংস্থা নাসা সূর্যের বলয় স্পর্শ করার এ ঘটনাটিকে ঐতিহাসিক মুহূর্ত হিসেবে আখ্যায়িত করেছে। বুধবার (১৫ ডিসেম্বর) সংবাদমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদনে এ খবর জানানো হয়েছে। সূর্যের আবহাওয়ামণ্ডলের যে স্তরে সৌরযানটি পৌঁছেছে তার নাম করোনা।

জানা গেছে, পার্কার সোলার প্রোব সূর্যের বলয়ে পৌঁছেছে গত এপ্রিলেই। তবে নানা তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ শেষে সদ্যই এই তথ্য নিশ্চিত হয়েছেন বিজ্ঞানীরা।

সাফল্যের কথা জানাতে গিয়ে নাসার হেলিওফিজিক্স শাখার কর্তা নিকোলা ফক্স বলেছেন, অবশেষে আমরা পৌঁছে গেছি। মানবসভ্যতা সূর্যকে স্পর্শ করল।

‘আমেরিকান জিওফিজিক্যাল ইউনিয়ন’এর এক সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন নিকোলা ও তার দলের আরও কয়েকজন সদস্য। সেখানেই এই অভিনব কৃতিত্বের কথা বলেন তিনি।

করোনা নামে সূর্যের ওই বলয় ও সেখানে বইতে থাকা ভয়ঙ্কর সৌর বাতাস নিয়ে মানুষের কৌতূহল দীর্ঘদিনের। তবে এই প্রথম পৃথিবীর কোনো যান তার কাছাকাছি পৌঁছতে পেরেছে।

নাসার তথ্যমতে, গত ২৮ এপ্রিল পার্কার সূর্যের বলয়ে প্রবেশ করেছিল। কিন্তু এই কয়েক মাসে ওই যান থেকে প্রাপ্ত সব তথ্য ডাউনলোড করে এই কীর্তি সম্পর্কে নিশ্চিত হয়েছেন তারা।

গত ২০১৮ সালে সূর্যের উদ্দেশে যাত্রা করেছিল পার্কার। এর পর থেকেই সূর্যের অসংখ্য ছবি পাঠাতে শুরু করে সৌরযানটি।

২০২৫ সাল পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে যাবে পার্কার। সূর্য ও তার চৌম্বক ক্ষেত্রসহ আরও নানা বিষয়ে নতুন নতুন তথ্য সরবরাহ করবে ওই সৌরযান।