বাংলাবাজার ফেরি ঘাট স্থায়ীভাবে যাচ্ছে মাঝিরকান্দিতে

কায়সার সামির, (মুন্সীগঞ্জ) :

বার বার পদ্মা সেতুর খুটিতে ফেরি ধাক্কা খাওয়ায় ঘাট স্থায়ীভাবে যাচ্ছে মাঝিরকান্দিতে। এর আগে বাংলাবাজারের বিকল্প মাঝিরকান্দিতে ঘাট তৈরি হয়েছে ১২ দিন আগে। কিন্তু নাব্য সংকটে নতুন এ রুটে ফেরি চালু হয়নি। শিমুলিয়া-বাংলাবাজার রুটে প্রবল স্রোতের কারণ দেখিয়ে ২০ দিন ধরে ফেরি চলাচল বন্ধ রয়েছে। এতে দুর্ভোগ বেড়েছ পণ্যবাহী ট্রাক, অ্যাম্বুলেন্সসহ সাধারণ মানুষের।

এদিকে পদ্মা সেতু এড়িয়ে চলাচলের জন্য বাংলাবাজারের বিকল্প মাঝিরকান্দিতে নতুন ঘাট প্রস্তুত থাকলেও ফেরি ভিড়তে পারছেনা। অলস পড়ে আছে ফেরি ঘাট সহ ১৪টি ফেরি। আর দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের অপেক্ষা যেন শেষ হচ্ছেনা। নদী পারাপারে যাত্রীদের বিড়ম্বনা বেড়েই চলেছে। এতে নদী পারাপারে মানষের দুর্ভোগ চরমে। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে উত্তাল পদ্মা পাড় হচ্ছে লঞ্চ দিয়ে।

পানি সম্পদ উপ-মন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম জানিয়েছেন, রবিবার আন্তঃমন্ত্রণালয়ের বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বাংলাবাজার ঘাট স্থায়ীভাবে মাঝিরকান্দিতে সরিয়ে আনার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

বিআইডব্লিউটিএ’র শিমুলিয়া ঘাটের উপ-পরিচালক ওবায়দুল করিম খাঁন বলেন, মাঝিরকান্দি চ্যানেলে সর্বনিম্ন প্রশস্থতা এখন ২শ মিটার। গভীরতা ১০ মিটার। শিমুলিয়া থেকে মাঝিরকান্দির দূরত্ব ৮ কিলোমিটার এবং বাংলাবাজারের দরত্ব ১১ কিলোমিটার। গেলো ১৮ আগস্ট থেকে শিমুলিয়া বাংলাবাজার নৌরুটে ফেরি চলাচল বন্ধ থাকার পরে পদ্মা সেতুকে এড়িয়ে চলার জন্য এই মাঝিরকান্দি ঘাটটি প্রস্তুত করা হয় ২৬ আগস্ট। কিন্তু এখনো এই ঘাট দিয়ে ফেরি চলাচল শুরু হয়নি।