হিলিতে প্রথম নারী উদ্যোক্তা বিজয় মেলা অনুষ্ঠিত

বিডিএফএন টোয়েন্টিফোর.কম

স্বাধীনতার ৫০ বছরে দেশের অন্যান্য এলাকার নারীদের পাশাপাশি অনেক এগিয়েছে সীমান্তবর্তী এলাকার নারীরাও। তারই অংশ হিসেবে দিনাজপুরের হিলিতে প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হয়ে গেল নারী উদ্যোক্তা বিজয় মেলা। যেখানে উদ্যোক্তারা তাদের নিজের হাতের তৈরি বিভিন্ন পণ্যের পসরা সাজিয়ে বসেছিলেন।

মেলায় দর্শনার্থীদের উপচেপড়া ভিড় ও বিক্রি ভালো হওয়ায় খুশি উদ্যোক্তারা দেখছেন সামনের দিকে এগিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা। একইসঙ্গে এমন আয়োজনে খুশি জানিয়ে প্রতিবছর এমন বিজয় মেলা আয়োজনের দাবী মেলায় আসা দর্শনার্থীদের।

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী মহান বিজয় দিবস ও বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষ উপলক্ষ্যে হাকিমপুর উপজেলা প্রশাসনের সহযোগীতায় উপজেলার ১৬ জন নারী উদ্যোক্তার আয়োজনে উপজেলা পরিষদ চত্বরে দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত হলো ব্যতিক্রম ধর্মী নারী উদ্যোক্তা মেলা।

বৃহস্পতিবার (১৬ ডিসেম্বর) বিকেল ৩টায় হাকিমপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ নূর-এ আলম, উপজেলা চেয়ারম্যান হারুন উর রশীদ ও পৌর মেয়র জামিল হোসেন এই মেলার উদ্বোধন করেন। বিকেল থেকে শুরু করে রাত পর্যন্ত চলে এই মেলা।

দেশের সবচেয়ে নিকটতম সীমান্তবর্তী এলাকা হিলি। এখানে রয়েছে দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম স্থলবন্দর। এতদিন শুধু পুরুষরা বিভিন্ন ব্যবসা করে আসলেও এবার সেই তালিকায় এবার নাম লেখান নারীরাও। নিজ হাতে তৈরি পোশাক, খাবার, প্রসাধনীসহ বিভিন্ন পণ্য নিয়ে ১৬টি স্টল দিয়ে বসেন তারা।

নারী উদ্যোক্তা তৌহিদা ইয়াসমিন বলেন, হিলিতে এই প্রথমবারের মতো নারী উদ্যোক্তাদের নিয়ে উদ্যোক্তা বিজয় মেলা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। গ্রামীণ নারীদের কাজে লাগিয়ে তাদের হাতে বিভিন্ন পণ্য তৈরি করছি আমরা, যার গুণগত মান অনেক ভালো। সেই সব পণ্য নিয়েই আমরা নারী উদ্যোক্তারা মেলায় হাজির হয়েছি। মেলায় ক্রেতা সমাগম অনেক ভালো, বেচাকেনাও বেশ ভালো হয়েছে। আমাদের নিজস্ব কোনও দোকান নেই, আমরা হয়তো অনলাইনে বা বাসা থেকেই এসব পণ্য বিক্রি করতাম। তাই পণ্যের প্রচার প্রসারে প্রতিবছর এমন মেলার আয়োজনের দাবী জানাই।

সোহানা রহমান নামে অপর এক উদ্যোক্তা বলেন, আমি বিগত ৮ বছর ধরে ফেসবুক পেজের মাধ্যমে আমাদের উৎপাদিত পণ্য বিক্রি করে আসছিলাম। আমার মূল কাজ শুরু হয় পেপার ক্রাফটের কাজের মধ্য দিয়ে। কিন্তু সে সময় আমার সমস্যা ছিল ঘরে বসে পণ্য তৈরি করলেও এসব মালামাল ডেলিভারী করবে কে, যা এখনও আছে। হিলিতে কোন ডেলিভারী প্রতিষ্ঠান এখনও গড়ে ওঠেনি, যা আমাদের এরকম ব্যবসার জন্য খুব দরকার। হিলির নারীরা নিজেরা উদ্যোক্তা হয়ে উঠে আসা উচিৎ। ছেলেরা ব্যবসা করলেও মেয়েরা ব্যবসা করতে পারেনা- তাই নারীদের লেখাপড়ার পাশাপাশি নিজেকে উদ্যোক্তা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করে স্বাবলম্বী হওয়া দরকার।

মেলায় আসা ইমরুল ও নারগিস আকতার বলেন, এই প্রথম হিলিতে নারী উদ্যোক্তাদের নিয়ে উদ্যোক্তা বিজয় মেলা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। মেলায় অনেক ভালো ভালো হাতের তৈরি বিভিন্ন ধরনের পণ্য রয়েছে যা আমাদের খুব ভালো লাগছে। আমরা বন্ধু বান্ধবীরা মেলায় এসেছি, দেখছি, কেনাকাটা করছি। সব মিলিয়ে ভালো উপভোগ করছি। এই ধরনের মেলার ফলে নারী উদ্যোক্তারা লাভবান হবে। এটি যেন প্রতিবার হয়, সেই সাথে মেলাটি যেন দুই থেকে তিন দিনব্যাপী স্থায়ী হয়- এই দাবী জানাচ্ছি।

হাকিমপুর উপজেলা চেয়ারম্যান হারুন উর রশীদ বলেন, বিজয়ের ৫০ বছর ও জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষ্যে নারী উদ্যোক্তাদের নিয়ে মেলার আয়োজন করা হয়েছে। বিপুল সংখ্যক দর্শক মেলা দেখতে আসছেন। বিজয়ের আনন্দকে বাড়তি করে তুলতে এই আয়োজন। নারী উদ্যোক্তারা এতদিন শুধু তাদের তৈরি বিভিন্ন পণ্য অনলাইনে বিক্রি করে আসছিলো। আজকেই প্রথম সরাসরি মানুষের সামনে তাদের তৈরি পণ্য নিয়ে আসার সুযোগ পেয়েছে। সাড়াও মিলেছে বেশ। তাদেরকে এগিয়ে নিতে সামনের দিনে আরো বড় পরিসরে এমন মেলা আয়োজনের পাশাপাশি সবধরনের সহযোগীতার আশ্বাস দেন তিনি।