সেপ্টেম্বরে বিজিবি’র অভিযানে ১০৬ কোটি ৯৮ লক্ষ ৩৮ হাজার টাকার চোরাচালান ও মাদকদ্রব্য জব্দ

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) গত সেপ্টেম্বর-২০২১ মাসে দেশের সীমান্ত এলাকাসহ অন্যান্য স্থানে অভিযান চালিয়ে সর্বমোট ১০৬ কোটি ৯৮ লক্ষ ৩৮ হাজার টাকা মূল্যের বিভিন্ন প্রকারের চোরাচালান পণ্য সামগ্রী, অস্ত্র ও গোলাবারুদ এবং মাদকদ্রব্য জব্দ করতে সক্ষম হয়েছে। জব্দকৃত মাদকের মধ্যে রয়েছে ২০,০৩,৭৮৭ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, ২ কেজি ৯৫ গ্রাম ক্রিস্টাল মেথ আইস, ২২,৩৬৮ বোতল ফেনসিডিল, ১৫,৬৮৪ বোতল বিদেশী মদ, ২,৯৩৮ ক্যান বিয়ার, ১,৫৬৫ কেজি ৯৬৫ গ্রাম গাঁজা, ৯ কেজি ১৫৫ গ্রাম হেরোইন, ১৩,০৯৯টি ইনজেকশন, ৭,৪৯৭টি ইস্কাফ সিরাপ, ১২৫ বোতল এমকেডিল/কফিডিল, ৪৯,৬৭৫টি এ্যানেগ্রা/সেনেগ্রা ট্যাবলেট এবং ১,৭৫,১০২টি অন্যান্য ট্যাবলেট। জব্দকৃত অন্যান্য চোরাচালান দ্রব্যের মধ্যে রয়েছে ৬ কেজি ৬৮ গ্রাম স্বর্ণ, ৫৩ কেজি ৬০০ গ্রাম রূপা, ১,১৮,২০৫টি কসমেটিক্স সামগ্রী, ৪,৮৪২টি শাড়ী, ২,৩৩৫টি থ্রিপিস/শার্টপিস, ৪১০ মিটার থান কাপড়, ১১২টি তৈরী পোশাক, ৩,৩৭৮ ঘনফুট কাঠ, ১০,৮২৬ কেজি চা পাতা, ২৬,০৫০ কেজি কয়লা, ৫টি ট্রাক/কাভার্ডভ্যান, ১০টি প্রাইভেটকার/মাইক্রোবাস, ৮টি পিকআপ, ৬০টি সিএনজি/ইঞ্জিন চালিত অটোরিকশা এবং ৭০টি মোটর সাইকেল। উদ্ধারকৃত অস্ত্রের মধ্যে রয়েছে ৩টি পিস্তল, ৫টি বিভিন্ন প্রকার গান, ৫টি ম্যাগাজিন এবং ১২ রাউন্ড গুলি। এছাড়াও সীমান্তে বিজিবি’র অভিযানে ইয়াবাসহ বিভিন্ন প্রকার মাদক পাচার ও অন্যান্য চোরাচালানে জড়িত থাকার অভিযোগে ৩৪৫ জন চোরাচালানীকে এবং অবৈধভাবে সীমান্ত অতিক্রমের দায়ে ২২১ জন বাংলাদেশী নাগরিক ও ৯ জন ভারতীয় নাগরিককে আটকের পর তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।