শিরোনাম

South east bank ad

প্রতারণার অভিযোগে আরেক সাহেদ গ্রেপ্তার

 প্রকাশ: ১৩ অগাস্ট ২০২২, ১২:০০ পূর্বাহ্ন   |   পুলিশ

প্রতারণার অভিযোগে আরেক সাহেদ গ্রেপ্তার

বিডিএফএন টোয়েন্টিফোর.কম

চট্টগ্রামে নৌবাহিনীর সাব-লেফটেন্যান্ট পরিচয় দিয়ে প্রতারণার অভিযোগে মো. নূর মোহাম্মদ সাহেদ (২১) নামে এক প্রতারককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। শুক্রবার (১২ আগস্ট) ভোরে চট্টগ্রাম নগরীর হালিশহর থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

এসময় একটি নেভীর (সাব-লেফটেন্যান্ট) ইউনিফর্ম, একটি নেভীর ক্যাপ, একটি নেভীর (সাব-লেফটেন্যান্ট) বেল্ট, একটি নেভীর ব্যাগ, একটি নেভীর গোষ্ঠী, দুটি নেভীর অক্সফোর্ড জুতা, দুটি নেভীর বুট জুতা, পাঁচটি নেভীর নেমপ্লেট, দুটি মোবাইল, দুটি নেভীর (সাব-লেফটেন্যান্ট) র‍্যাঙ্ক বেজ, দুটি নেভীর (লেফটেন্যান্ট) রেড বেজসহ বিভিন্ন সামগ্রী জব্দ করা হয়েছে।

মো. নূর মোহাম্মদ সাহেদ ফেনী সদরের শর্শদি ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের মো. নুর নবীর ছেলে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন খুলশী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সন্তোষ কুমার চাকমা। তিনি বলেন, নৌবাহিনীর সাব-লেফটেন্যান্ট পরিচয় দিয়ে প্রতারণা করত মো. নূর মোহাম্মদ সাহেদ। প্রতারণা করে অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে গত ৩ আগস্ট ওমর ফারুক নামের এক ব্যবসায়ী তার বিরুদ্ধে মামলা করেন। সেই মামলায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

ওসি বলেন, মামলার বাদী ওমর ফারুক একজন ব্যবসায়ী। তার সামিয়া এন্টারপ্রাইজ ও ওয়াফাসা মোটরস নামের দুটি মোটরসাইকেলের শো রুম আছে। সাহেদ ৪ মাস আগে বাদীর মোটরসাইকেল শো রুম থেকে একটি মোটরসাইকেল কেনেন। সেই সুবাদে ওমর ফারুকের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। সাহেদ নৌবাহিনীর সাব-লেফটেন্যান্ট বলে পরিচয় দেয়। এতে তাদের মধ্যে সুসম্পর্ক গড়ে উঠে ও একে অপরের বাসায় যাওয়া আসা শুরু করে।

তিনি বলেন, এরই ধারাবাহিকতায় গত ১০ জুন সাহেদ ওমর ফারুকের প্রতিষ্ঠানে আসেন। তখন সিলেটে বন্যা ছিল। সাহেদ ওমর ফারুককে বন্যাদুর্গতদের ত্রাণ বিতরণের প্রস্তাব দেন। সাহেদ তার মালিকানাধীন দুরন্ত সাপ্লায়ার্স লিমিটেড থেকে বাজার মূল্যের চেয়ে কম দামে চাল, চিনি ও সয়াবিন তেল বিক্রিরও প্রস্তাব দেন। অর্ডার অনুযায়ী মোট পণ্যের দাম ৩৩ লাখ ২০ হাজার টাকা বলে জানান।

ওসি সন্তোষ বলেন, ওমর ফারুক সরল বিশ্বাসে ১৩ জুন নগদ ও চেকের মাধ্যমে ২০ লাখ টাকা সাহেদকে দেন। কিন্তু সাহেদ পণ্য সরবরাহ না করে লাপাত্তা হয়ে যান। একপর্যায়ে মামলার ওমর ফারুককে দুটি চেক দেন সাহেদ। কিন্তু চেক দুটি জমা দিলে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ চেক দুটি ডিজঅনার করেন। এরপর ওমর ফারুক আসামি সাহেদের সঙ্গে যোগাযোগ করলে টাকা দেবে না বলে জানায় এবং বাদীকে টাকা দেবে না বলে হুমকি দেয়। এরপর বাদী খুলশী থানায় মামলা দায়ের করেন। পরে আজ হালিশহর থানা পুলিশের সহায়তার তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

BBS cable ad