আইডিয়া প্রকল্প স্টার্টআপ বাংলাদেশকে ৪৩ কোটি টাকা দিচ্ছে

আইডিয়া প্রকল্পের একটি দক্ষ নির্বাচনী কমিটির মাধ্যমে প্রি-সিড পর্যায়ে ১৭৯টি ইনোভেটিভ স্টার্টআপকে অনুদান দেওয়ার জন্য মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। সিড ও গ্রোথ পর্যায়ের স্টার্টআপদের ইক্যুইটি অর্থায়নের জন্য এ প্রকল্পের মাধ্যমে গত মার্চ ২০২০ এ গঠিত হয় দেশের সর্বপ্রথম সম্পূর্ণ সরকারি মালিকানাধীন ভেঞ্চার ক্যাপিটাল কোম্পানি ‘স্টার্টআপ বাংলাদেশ লিমিটেড’।
স্টার্টআপ বাংলাদেশ লিমিটেডকে ৪৩ কোটি টাকা দিচ্ছে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগের ‘উদ্ভাবন ও উদ্যোক্তা উন্নয়ন একাডেমি প্রতিষ্ঠাকরণ প্রকল্প’ তথা আইডিয়া প্রকল্প। সিড ও গ্রোথ পর্যায়ের স্টার্টআপদের ইক্যুইটি অর্থায়নের জন্য এ টাকা দেওয়া হবে।

অর্থায়নের অংশ হিসেবে এখন পর্যন্ত তিনটি ধাপে আইডিয়া প্রকল্প থেকে মোট ২৩ কোটি টাকা হস্তান্তর করা হয়েছে। সর্বশেষ ধাপে সম্প্রতি আইডিয়া প্রকল্পের পরিচালক আব্দুর রাকিব স্টার্টআপ বাংলাদেশ লিমিটেড কোম্পানিকে ছয় কোটি টাকার চেক দেন। স্টার্টআপ বাংলাদেশের কোম্পানি সেক্রেটারি এ বি এম মনিরুল ইসলাম অর্থায়নের চেক গ্রহণ করেন।

এ কোম্পানির মাধ্যমে স্টার্টআপদের সিড স্টেজে সর্বোচ্চ ১ কোটি ও গ্রোথ স্টেজে প্রতি রাঊন্ডে সর্বোচ্চ ৫ কোটি টাকা পর্যন্ত সর্বোচ্চ ৪৯ শতাংশ ইক্যুইটি বিনিয়োগের সুযোগ রয়েছে। ‘স্টার্টআপ বাংলাদেশ লিমিটেড’ কোম্পানিকে সিড ও গ্রোথ পর্যায়ের উদ্যোক্তাদের উন্নয়নে আইডিয়া প্রকল্প থেকে ৪৩ কোটি টাকা দেওয়া হচ্ছে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে, স্টার্টআপদের ইক্যুইটি বিনিয়োগের লক্ষ্যে প্রকল্প কর্তৃক তিনটি ধাপে যথাক্রমে ৭ কোটি, ১০ কোটি ও ৬ কোটি অর্থাৎ সর্বমোট ২৩ কোটি টাকা ‘স্টার্টআপ বাংলাদেশ লিমিটেড’ কোম্পানিকে দেওয়া হয়েছে। আগামী ২০২১-২২ অর্থবছরে উক্ত কোম্পানিকে বাকি আরও ২০ কোটি টাকা দেবে এ প্রকল্প।